পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা

পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা কুড়ি বছর পরে কবিতার ব্যাখ্যা ফাল্গুনের কবিতা জীবনানন্দ দাশ প্রেম ধিরে মুছে যায় জীবনানন্দ দাশ ইয়েটস ও জীবনানন্দ জীবনানন্দ দাশের কবিতার বৈশিষ্ট্য জীবনানন্দ দাশের সাহিত্য সমালোচনা বিচিত্র চেতনার কবি জীবনানন্দ দাশ জীবনানন্দ দাশ কবিতা সমগ্র



পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা
পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা

 

পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা

পঁচিশ বছর পরে – Pochish Bosor Pore । জীবনানন্দ দাশ - কবিতা কুড়ি বছর পরে কবিতার ব্যাখ্যা ফাল্গুনের কবিতা জীবনানন্দ দাশ প্রেম ধিরে মুছে যায় জীবনানন্দ দাশ ইয়েটস ও জীবনানন্দ জীবনানন্দ দাশের কবিতার বৈশিষ্ট্য জীবনানন্দ দাশের সাহিত্য সমালোচনা বিচিত্র চেতনার কবি জীবনানন্দ দাশ জীবনানন্দ দাশ কবিতা সমগ্র



শেষবার তার সাথে যখন হয়েছে দেখা মাঠের উপরে-
বলিলামঃ ‘ একদিন এমন সময়
আবার আসিও তুমি- আসিবার ইচ্ছা যদি হয়;
পঁচিশ বছর পরে ।‘
এই ব’লে ফিরে আমি আসিলাম ঘরে;
তারপর, কতবার চাঁদ আর তারা,
মাঠে- মাঠে মরে গেল, ইঁদুর – পেঁচারা
জ্যোৎস্নায় ধানক্ষেত খুঁজে
এল-গেল ! – চোখ বুজে
কতবার ডানে আর বাঁয়ে
পড়িল ঘুমায়ে
কত- কেউ !- রহিলাম জেগে
আমি একা- নক্ষত্র যে বেগে
ছুটিছে আকাশ,
তার চেয়ে আগে চ’লে আসে
যদিও সময়,-
পঁচিশ বছর তবু কই শেষ হয় !-

তারপর- একদিন
আবার হলদে তৃণ
ভ’রে আছে মাঠে –
পাতায় , শুকনো ডাঁটে
ভাসিছে কুয়াশা
দিকে- দিকে, – চড়ুয়ের ভাঙা বাসা
শিশিরে গিয়েছে ভিজে, – পথের উপর
পাখির ডিমের খোলা , ঠাণ্ডা – কড়কড় !
শসাফুল , – দু-একটা নষ্ট শাদা শসা,-
মাকড়ের ছেঁড়া জাল, – শুকনো মাকড়সা
লতায়- পাতায়;-
ফুটফুটে জ্যোৎস্নারাতে পথ চেনা যায়;
দেখা যায় কয়েকটা তারা
হিম আকাশের গায়,- ইঁদুর – পেঁচারা
ঘুরে যায় মাঠে – মাঠে , ক্ষুদ খেয়ে ওদের পিপাসা আজো মেটে,
পঁচিশ বছর তবু গেছে কবে কেটে !

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url